মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে অপসারিত খাদ্যসচিব; বদলি হলেন পশ্চিম বর্ধমান এবং দার্জিলিং – র জেলাশাসক

বেঙ্গল মিরর, কলকাতা, ১৭ ই এপ্রিল ২০২০, সৌরদীপ্ত সেনগুপ্ত: 
করোনা আতঙ্কে সারা দেশে লক ডাউন চলছে। পশ্চিমবঙ্গ এর ব্যতিক্রম নয়। এরই ফাঁকে ৩ টি গুরুত্বপূর্ণ প্রশাসনিক রদবদল ঘটে গেল মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে।
 খাদ্যসচিব পদ থেকে মনোজ আগরওয়ালকে অপসারন করা হল। মনোজ আগরওয়ালকে কমপালসারি ওয়েটিংয়ে পাঠানো হয়েছে। 

riju advt

আর সেই জায়গায় খাদ্য ও গণবণ্টন দফতরের নতুন সচিব হচ্ছেন পারভেজ আহমেদ সিদ্দিকি।

  এ ছাড়া পশ্চিম বর্ধমান এবং  দার্জিলিং জেলাশাসককে বদলি করা হয়েছে।
 সূত্র মারফত জানা যাচ্ছে , লকডাউন পরিস্থিতিতে রাজ্যের রেশন ব্যবস্থা নিয়ে বিরোধীরা নানা অভিযোগ তুলছিল। এই অভিযোগ  গোটা ঘটনায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যথেষ্ট অসন্তুষ্ট বলে জানা গেছে। আর এরই ফলস্বরূপ খাদ্যসচিব মনোজ আগরওয়ালকে অপসারণ করা হলো বলে নবান্ন সূত্রে খবর। তাকে কমপালসারি ওয়েটিংয়ে পাঠানো হয়েছে। মনোজ আগারওয়ালের জায়গায় খাদ্য ও গণবণ্টন দফতরের নতুন সচিব হচ্ছেন পারভেজ আহমেদ সিদ্দিকি। এতদিন তিনি খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ শিল্প এবং উদ্যানপালন দফতরের সচিবের দায়িত্বে ছিলেন।
  আরো উল্লেখযোগ্য ব্যাপার হলো বৃহস্পতিবার নবান্ন থেকে রাজ্যের দুই জেলা- দার্জিলিং এবং পশ্চিম বর্ধমানের জেলাশাসকের বদলির নির্দেশিকাও জারি হয়েছে।
 দার্জিলিংয়ের বর্তমান জেলাশাসক দিপাপ প্রিয়া পি ছিলেন। তাকে  রাজ্যের কর্মীবর্গ ও প্রশাসনিক সংস্কার দফতরে বদলি করে ওই দফতরের ‘অফিসার অন স্পেশ্যাল ডিউটি’ ( ও এস ডি ) নিয়োগ করা হয়েছে। তাঁর জায়গায় দার্জিলিংয়ের নতুন জেলাশাসক হচ্ছেন পোন্নামবলম এস। তিনি বর্তমানে শিলিগুড়ি জলপাইগুড়ি উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (এস জে ডি এ) সিইও পদে আছেন। 
আর শিলিগুড়ির ( জি এস টি) কমিশনার প্রিয়াঙ্কা সিংলা এস জে ডি এ -র সিইওর অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করবেন।    
    আর এদিকে পশ্চিম বর্ধমানের জেলাশাসক শশাঙ্ক শেঠিকে বদলি করে মুখ্যচিবের ‘অফিসার অন স্পেশ্যাল ডিউটি’ (ও এস ডি) নিয়োগ করা হয়েছে।
  পশ্চিম বর্ধমানের নতুন জেলাশাসক হচ্ছেন পূর্ণেন্দু কুমার মাজি। তিনি এতদিন বীরভূমের অতিরিক্ত জেলা 
শাসক( এ ডি এম) এবং (ডি এল এল আর ও ) পদে ছিলেন।
এ দিকে, করোনা উদ্ভুত পরিস্থিতি নিয়ে শুক্রবার নবান্নে একটি উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে বসতে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ভিডিয়ো কনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠকে অংশ নেবেন রাজ্যের প্রতিটি জেলার জেলাশাসক, পুলিশ সুপার, পুলিশ কমিশনার এবং মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকরা। নবান্ন সূত্রে খবর, বৈঠকে করোনা সংক্রমণের চিত্র, লকডাউন পরিস্থিতি নিয়ে প্রতিটি জেলা নিয়ে পৃথক আলোচনা হতে পারে।