নির্দেশ অমান্যে ৫০০ টাকা জরিমানা / রেল শহর চিত্তরঞ্জনে মাস্ক পড়া বাধ্যতামুলক করলো রেল

বেঙ্গল মিরর,  রাজা বন্দোপাধ্যায়, আসানসোল, ১১এপ্রিলঃ রেলের তরফে রেল শহর চিত্তরঞ্জনে থাকা ও শহরে বাইরে থেকে মানুষদের ঢোকার জন্য মাস্ক পড়া বাধ্যতামূলক করলো। শনিবার থেকে এই নির্দেশ কার্যকর করা হয়েছে। যে বা যারা মাস্ক পড়বেন না বা সরকারি নির্দেশ অমান্য করবেন তাদেরকে ৫০০ টাকা করে জরিমানা দিতে হবে।

riju advt

চিত্তরঞ্জন রেল ইঞ্জিন কারখানা কর্তৃপক্ষের তরফে ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার তথা এস্টেট অফিসার প্রমোদ চৌধুরী এই মর্মে একটি নির্দেশ জারি করেছেন। সেই নির্দেশের পর থেকেই চিত্তরঞ্জন শহরের ৩ নং গেটে আরপিএফ রেলের স্বাস্থ্যকর্মীদের নিয়ে নিরাপত্তা আরো জোরদার করেছেন। বাড়ানো হয়েছে নজরদারিও।  

ঐ নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, শহরের কোন রাস্তায় যারা যাতায়াত করবেন , বাজারে ও হাসপাতাল যারা যাবেন তাদেরকে অবশ্যই মাস্ক পড়তে হবে। যারা মোটরবাইকে বা অন্য গাড়িতে যাবেন তাদেরও মাস্ক পড়া বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। কেউ যদি অন্য কোন প্রয়োজনে কোথাও যান, তাদেরকেও মাস্ক পড়তে হবে ।এছাড়া বাইরে থেকে কোনো প্রয়োজনে রেল শহরে যারা আসবেন তাদেরও মাস্ক পড়া বাধ্যতামূলক। যারা এই নিয়ম মানবেন না তাদেরকে ৫০০ টাকা জরিমানা করা হবে।
প্রসঙ্গতঃ, চিত্তরঞ্জন শহরের বেশ কিছু এলাকা ঝাড়খণ্ডের সঙ্গে যুক্ত । সেই সব জায়গা গুলি ইতিমধ্যেই সিল বা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে । তা সত্ত্বেও ঝাড়খণ্ডের বেশ কিছু সবজি বিক্রেতা প্রতিদিন চিত্তরঞ্জন শহরের বিভিন্ন বাজারে আসছেন। বারবার বলা সত্বেও তারা মাস্ক মুখে লাগাচ্ছেন না বলে অভিযোগ । এছাড়াও শহরের মধ্যেও যারা থাকেন তাদের অনেককেই  খোলামুখ নিয়ে ঘুরে বেড়াতে দেখা যাচ্ছে। রেল কতৃপক্ষের আশা , এই নির্দেশের ফলে অবস্থার কিছুটা পরিবর্তন হবে।
যদিও, রেল শহর চিত্তরঞ্জন লাগোয়া রুপনারায়নপুর বাজার ও হিন্দুস্থান কেবলসে্র বাজারের ছবি  দেখে কখনোই মনে হবে না যে, করোনা ভাইরাসের মোকাবিলায় লকডাউন চলছে । সেই খবর পেয়ে  বারাবনির বিধায়ক বিধান উপাধ্যায় নিজে রুপনারায়নপুর বাজারে পরিদর্শনে যান । তিনি বাজারের দুপাশে দুটি ব্যারিকেড করার নির্দেশ দেন । ব্যবসায়ীদের সঙ্গে  কথা বলে তিনি ২০ জন করে বাজারে ঢোকার কথা বলেন । সেই ২০ জন চলে গেলে  পরে আরো ২ জনকে বাজারে ঢোকানোর পরামর্শ দেন।