দুর্গাপুরে কেউ করোনা আক্রান্ত নয় বলে দাবি করলেন দুর্গাপুর মহকুমা শাসক

বেঙ্গল মিরর, দুর্গাপুর, ১৮ ই এপ্রিল, ২০২০, সৌরদীপ্ত সেনগুপ্ত:
২৫ শে মার্চ সারা দেশ জুড়ে লকডাউন ঘোষণা হয়েছিল করোনা পরিস্থিতিতে।
 পশ্চিমবঙ্গের অন্যান্য জেলার মত পশ্চিম বর্ধমানের মানুষ আতঙ্কিত। আতঙ্ক ছড়িয়েছে শিল্পতালুক দুর্গাপুরের মানুষের মধ্যে । এরই মধ্যে প্রশাসনের মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে সোশাল মিডিয়ায় ছড়ানো গুজব। গুজবের জেরে জেরবার হতে হচ্ছে প্রশাসনিক কর্তা ব্যক্তিদের। 

riju advt

 এরই মাঝে গতকাল দুর্গাপুরের মহকুমা শাসক অনির্বাণ কোলে জানান, কোরোনায় আক্রান্ত আসানসোলের এক মহিলা ছাড়া কাঁকসা থানা এলাকার মলানদিঘির বেসরকারি হাসপাতালে কোরোনায় আক্রান্ত হয়ে আর কেউ চিকিৎসাধীন নেই । কাঁকসা থানার মলানদিঘির ওই হাসপাতালকে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের পক্ষ থেকে কোভিড -১৯ আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য চিহ্নিত করা হয়েছে । 
বস্তুত কিছুদিন ধরেই অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছিল , সোশাল মিডিয়ায় দুর্গাপুরের এক শ্রেণির মানুষ প্রতিদিন সোশ্যাল মিডিয়াতে গুজব ছড়াচ্ছেন । এ বিষয়ে আসানসোল- দুর্গাপুর পুলিশ কমিশনারেটের ডেপুটি কমিশনার (পূর্ব ) অভিষেক গুপ্তা আই .পি.এস বলেন , ” আমরা সোশাল মিডিয়ায় নজর রাখছি । যে সমস্ত ব্যক্তি গুজব  ছড়াচ্ছেন তাদের দ্রুত গ্রেপ্তার করা হবে । অযথা গুজব ছড়ালে তার বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।”
দুর্গাপুরে কতজন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত এবং সেই এলাকার নাম করে সোশাল মিডিয়ায় বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন কেউ কেউ । এই বিষয়ে দুর্গাপুরের মহকুমা শাসক অনির্বাণ কোলে  বলেন , ” দুর্গাপুরের কেউই এই মুহূর্তে এখানে চিকিৎসাধীন নেই এবং দুর্গাপুর করনামুক্ত।”
  আসানসোল দুর্গাপুর পুলিশ কমিশনারেট এবং দুর্গাপুরের মহকুমা শাসকের  পক্ষ থেকে  শিল্পশহর দুর্গাপুরের বাসিন্দাদের আরো সচেতন হতে অনুরোধ করে হচ্ছে । সোশ্যাল ডিস্টান্সিং বা সামাজিক দূরত্বকে মেনে চলা, বাইরে বেরোলে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার, গুজব না ছড়ানো, লক ডাউন মেনে চলা এসব সম্পর্কে বারংবার বার্তা দেওয়া হচ্ছে মাইকিং এর মাধ্যমে সমস্ত দুর্গাপুর শিল্পাঞ্চলে।