লছিপুর নিষিদ্ধ পল্লীতে অভিনব মে-দিবস পালন

বেঙ্গল মিরর, আসানসোল: করোনার আতঙ্কের আবহ যখন সারাদেশে শ্রমজীবি মানুষ আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবস অর্থাৎ মে-দিবস পালন করছে, তখন পশ্চিম বর্ধমান জেলায় সীতারামপুরের লছিপুর নিষিদ্ধ পল্লীতে অভিনব মে-দিবস পালন করতে দেখা গেল ৷

riju advt

লকডাউনের ফলে এই অঞ্চলের যৌনকর্মীদের আয় পুরোপুরি বন্ধ ৷ বেশিরভাগই রেশনকার্ড না থাকায় তারা প্রচন্ড দুর্ভোগে পড়েছে ৷ এই অবস্থায় মানবিকতার খাতিরে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী ও সংস্থা তাদের সাহায্যে এগিয়ে এসেছেন ৷
কিন্তু আসানসোল ইষ্টার্ন রেলওয়ে হায়ার সেকেণ্ডারী বিশ্বনাথ মিত্র আজকের দিনে এইসব যৌনকর্মীদের পাশে এসে দাঁড়াতে গিয়ে একটু অন্যরকম ভেবেছিলেন ৷ এইদিন বিভিন্ন সহৃদয় মানুষের সহযোগিতায় তিনি শুধু এই এলাকায়  তিনশো জন বাসিন্দাকে খাদ্যসামগ্রী তুলে দিলেন তাই নয়, ঐতিহাসিক পয়লা মে তারিখে তাদেরকে মে-দিবসের ব্যাজ পড়িয়ে যৌনকর্মীদের শ্রমের মর্যাদা দিলেন ৷
বিশ্বনাথবাবু এই প্রতিবেদককে বললেন, তারা কয়েকদিন আগে আরও একবার এসেছিলেন ৷ কিন্তু আজকের দিনটিকে বিশেষ উদ্দেশ্যে ত্রাণের জন্য বেছে নিয়েছেন ৷ কারণ তিনি মনে করেন ১৮৮৬ সালের মে মাসের আন্দোলন শুধু আট ঘন্টা কাজের দাবী ছিল না, ছিল শ্রমিকদের ন্যায্য অধিকার আদায়েরও ৷ সামাজিক ও আর্থিক কারণে এরা এই আদিম পেশা বেছে নিতে বাধ্য হলেও, বেঁচে থাকার জন্য তাদের প্রতিনিয়ত সংগ্রামকে অস্বীকার করার নয় ৷
নিয়ামতপুরের ওসি পলাশ মন্ডল এদিনের অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন ৷ তিনি জানালেন উদ্যোক্তাদের এই প্রয়াস প্রশংসনীয় ৷ উপস্থিত ছিলেন এস আই রাকেশ সিং-ও ৷ 
এলাকার বাসিন্দা রজনী দাস ছলছল চোখে বললেন, এরকম সম্মান আজ অবধি কেউ দেননি  আসানসোল থেকে হাজির ছিলেন তৃণমূল নেতা কৃপাময় দাস এবং সমাজসেবিকা দীপান্বিতা বাল্মীকি এবং প্রসেনজিৎ দাশ ৷
দীপান্বিতা জানালেন, আমরা খবর পেয়েছিলাম লকডাউনের ফলে, লছিপুরের যৌনকর্মীরা খুব কষ্টে আছে ৷ তাই এই সামান্য চিল ডাল আলু সোয়াবিন তাদেরকে দিলাম ৷
মহীশিলার অ আ ক খ ক্লাব বিলিবন্টনের কাজটি প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত নিপূণভাবে সুসম্পন্ন করেছে ৷ উল্লেখ্য এর আগে নববর্ষের দিন বিশ্বনাথবাবুরা চবকার যৌনকর্মীদের নব্বইজন সন্তানদের জন্য দশদিনের টিফিন প্রদান করেন ৷

advt.