আসানসোলে আশ্রম মোড় সংলগ্ন তৃণমূল কার্যালয়ে রক্তদান শিবিরের উদ্বোধন করলেন এসবিএসটিসি চেয়ারম্যান দীপ্তাংশু চৌধুরী এবং মেয়র জিতেন্দ্র তেওয়ারি

আসানসোল, বেঙ্গল মিরর, সৌরদীপ্ত সেনগুপ্ত: আসানসোল পুরনিগমের ৪৩ নং ওয়ার্ডের জিটি রোডের আশ্রম মোড় সংলগ্ন তৃনমুল কংগ্রেসের কার্যালয়ে বুধবার হওয়া এক রক্ত দান শিবিরের উদ্বোধন করেন এসবিএসটিসির চেয়ারম্যান তথা পশ্চিম বর্ধমান জেলা তৃনমুল কংগ্রেসের পর্যবেক্ষক কর্ণেল দীপ্তাংশু চৌধুরী ও আসানসোল পুরনিগমের মেয়র তথা পশ্চিম বর্ধমান জেলা তৃনমুল কংগ্রেসের সভাপতি জিতেন্দ্র তেওয়ারি। এই অনুষ্ঠানে মেয়র জিতেন্দ্র বলেন, ” কিছু মানুষ এখন রক্ত নিয়ে মশগুল রয়েছেন। আর কিছু মানুষ রক্ত দিয়ে সাধারন মানুষের জীবন বাঁচানোর চেষ্টায় নিয়োজিত। যারা রক্ত দিয়ে সাধারণ মানুষের জীবন বাঁচানোর চেষ্টা করছেন তারা তৃনমুল কংগ্রেসে আছেন৷ আর যারা রক্তের বন্যা দেখতে চাইছেন তারা বিজেপিতে আছেন। কিন্তু এটা দেখে ভালো লাগছে যে, রক্ত নিয়ে খেলা করার মানুষের চেয়ে রক্ত দিয়ে জীবন বাঁচানোর মানুষের সংখ্যাটা অনেক বেশি। এই ভাবধারা যেন একই রকম থাকে থাকে। আপনারা মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সৈনিক। তারজন্য এইভাবে ভালো কাজ করে চলুন। করোনা সংকটের সময় বাংলার প্রতিটি মানুষের সুরক্ষা দেওয়া চেষ্টা আমাদের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় করেছেন৷ তার সৈনিক হিসাবে আপনারা যে কাজ করছেন, তারজন্য আপনাদের ধন্যবাদ।”

riju advt

এদিকে কর্ণেল দীপ্তাংশু চৌধুরী বলেন, “করোনা সংকটের সময় মমতা বন্দোপাধ্যায়ের একজন দক্ষ সৈনিক হিসাবে জিতেন্দ্র তেওয়ারি প্রতিটি বিধান সভায় দৌড়ে গেছেন৷ তিনি করোনা থেকে ভয় না পেয়ে সবাইকে সহযোগিতা করেছেন। আমাদের নেত্রীকে দেখে অনুপ্রাণিত হয়ে সব জেলায় দলের কর্মী ও সমর্থকেরা সাধারণ মানুষের সাহায্য করেছেন৷ বাংলায় যখন রক্তের ঘাটতি দেখা যায়, তখন মুখ্যমন্ত্রীর আহবানে সাড়া দিয়ে পুলিশ রক্ত দান শিবির শুরু করে। করোনা সংকটের সময় পুলিশ কর্মীরা রক্ত দিয়েছেন৷ এর পর মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সৈনিকরা বিভিন্ন জায়গায় রক্ত দান শিবিরের আয়োজন করেছেন৷ এই দানকৃত রক্তে বহু মানুষের জীবন বাঁচবে।”
ওই শিবিরে মোট 35 ইউনিট রক্ত সংগৃহীত হয়।

রক্তদান শিবিরে মেয়র পারিষদ পূর্ণ শশী রায়, মীর হাসিম, জেলা মাইনোরিটি সেলের চেয়ারম্যান গোলাম সরোবর, তৃনমুল কংগ্রেসের নেতা রবিউল ইসলাম, ডাঃ রুহুল আমীন উপস্থিত ছিলেন।