RANIGANJ-JAMURIA

রানীগঞ্জে খুঁটি পূজা করে গেলাম, বিসর্জনটা ৪ জুন হবে : অভিষেক

বেঙ্গল মিরর, চরণ মুখার্জী, রানীগঞ্জ :   একেবারে রাজকীয় ভঙ্গিমায় রানীগঞ্জের সিহারশোল রাজ ময়দানে, শুক্রবার তৃণমূল প্রার্থী শত্রুঘ্ন সিনহার সমর্থনে সভা করলেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন তিনি সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে অভিষেক জানান,  সূর্যের আলো কে যেমন রোখা যায় না, তেমনি উন্নয়নের অশ্বমেধের ঘোড়া কে কখনো থামানো যাবে না। এই বলে তিনি উদাহরণ দিয়ে দাবী করেন,২০১৪-২০২২ এই লোকসভায় বাবুল ছিলেন সাংসদ। আর সেই সময় মোদি বলেছিল মুঝে বাবুল চাহিয়ে। এরপর ২০২২ এ মোদির গ্যারান্টিতে বিশ্বাস করেনি বাবুল,সে আমাদের দলে নাম লিখিয়েছে। উপযুক্ত সম্মান দেওয়া হয়েছে তাকে।

একসাথে তিনি দাবি করেন,
প্রধানমন্ত্রী সভা করে বলেছে,এটা শুধু ট্রেলার দেখিয়েছি, তাহলে বুঝুন ১০ বছরে কিনা তিনি ট্রেলারে দেখলেন, আর এবার কি দেখাবেন তা জনগণ আগেই বুঝতে পেরেছে। তার দাবি পেট্রোল, ডিজেল, গাসের দাম বেড়েছে। নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বেড়েছে। গরীবের রান্না সামগ্রী, জিরে তে ১৮ শতাংশ জিএটি লাগলেও, হিরেতে নেই জি এফ টি। এই বলে তিনি দাবি করেন বিজেপি ১০ পয়সার বাড়তি উন্নয়ন করেনি ৮ বছরে। একই সাথেই অভিষেক জানান, আজ তিনটি সভা করেছেন প্রধানমন্ত্রী, আর আমি বিজেপিকে শ্বেতপত্র প্রকাশ করতে বলেছিলাম, কিন্তু তারা প্রকাশ করতে পারেনি শ্বেতপত্র।

এর পাশাপাশি তিনি,আলুওয়ালিয়া নিয়ে অভিষেক বলেন, কাকে প্রার্থী করেছে,যে দার্জিলিংয়ে ৫ মিনিট সময় দেয়নি, এরপর দুর্গাপুরেও একই চিত্র, সে কিনা আসানসোলের উন্নয়ন করবে। এই বলে তিনি জানান  এই আসানসোল হল পশ্চিমবঙ্গের বর্ডার। যেখান থেকে এবার আসানসোলের মানুষ তাকে  বাংলা থেকে ঝেটিয়ে বিদেয় করবে। এর পাশাপাশি এদিন জনসভার মঞ্চ থেকেএক বিজেপি নেত্রীর সাউন্ড ক্লিপ শুনিয়ে, অভিষেক দাবি করেন
বিজেপি লক্ষ্মীর ভান্ডার বন্ধ করে দিতে চায়, যা নিয়ে চলছে চক্রান্ত। এই বলে তিনি লক্ষীর ভান্ডার নিয়ে নানান তথ্য তুলে ধরে দাবি করেন
আমরা যতদিন আছি লক্ষ্মীর ভান্ডার বব্ধ হবে না। এটাই তৃণমূলের গ্যারান্টি।

এর সাথেই তিনি পরিসংখ্যান দিয়ে জানান আপনাদের এ জেলায় ৫৭ হাজার ৪৭৫ জন একশো দিনের শ্রমিককে ১৮  কোটি টাকা বকেয়া মিটিয়েছেন, আর তার সাথেই রেশনসহ আরো নানান বিষয়ে যে সকল ব্যবস্থা গ্রহণ হয়েছে তা নিয়েও বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরেন । ওঠে ভোজপুরী গায়ককে প্রার্থী করা নিয়ে কথা।  তবে এ সকলের সাথেই তিনি দাবি করেন, এখানে ১৩ মে নির্বাচন, যেদিন রাজ্যে পরিবর্তন হয়েছিল। আর আপনারা ভোট দিন, এই ১৩ই মে আপনারা সেই পরিবর্তন আরও একবার করে বুঝিয়ে দিন কেন্দ্রের মোদি সরকারকে। তার দাবি আমরা জয়ী হলে আমরা মাথা নিচু করে সমস্ত পরিষেবা প্রদান করব। আর এ সকলের সাথেই তিনি দাবি করেন বিজেপি যদি ক্ষমতায় চলে আসে তাহলে ৫ বছরে একবার ভোট হবে, যার ফলে মানুষ তাদের ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত হবেন পাবেন না সঠিক কোন সিদ্ধান্ত গ্রহণের নেতৃত্ব। আর এসবের সাথেই তিনি দাবী করেন, প্রধানমন্ত্রী নাকি বলেছেন যারা মাছ খায় তারা নাকি হিন্দু বিরোধী, এই বলে তিনি বাঙ্গালীদের আখ্যা দিয়েছেন যা কি সঠিক না বেঠিক তা নিয়ে সকলের কাছে সাওয়াল করেন তিনি। তুমি দাবি করেন এবার কি তাহলে মানুষের খাওয়া দাওয়া রুচিবোধ তা নিয়েও
নিদান দেবে প্রধানমন্ত্রী?


তবে তিনি  দু দফায়, দাবি করেন, যদি কোন বিজেপি নেতা টাকা দিয়ে ভোট কিনতে আসে, যদি টাকা দিতে চায়, টাকাটা নিয়ে নেবেন। এটা আপনাদের টাকা। উল্টে আরো বেশী করে চাইবেন। এটা আপনার প্রাপ্য। এই বলে তিনি ভোটারদের উদ্দেশ্যে বিজেপির দিকে লক্ষ্য করে দাবি করেন,হতে পারে এটাই শেষ নির্বাচন। যদি বিজেপি ক্ষমতায় আসে, তাহলে ভোট বলে আর কিছু থাকবে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। এর সাথেই তিনি দাবি করেন, কবার প্রধানমন্ত্রী বলেছে
নারী নির্যাতন নিয়ে, আজ কুস্তিগীর রাস্তায় মহিলাদের দিন প্রতিদিন সম্মানহানি হচ্ছে দেশের সর্বত্র অথচ চুপ নির্বিকার প্রধানমন্ত্রী, এরা কি করে এই কথা বলে, ব্রিজভুষনের ছেলেকে এবার টিকিট দিয়েছে বিজেপি,
বাংলার রাজ্যপাল মেয়ের বয়সী কর্মীর সঙ্গে শ্লীলতাহানি করেছে, এর থেকে লজ্জার বিষয় আর হয়না।

এই সকল কথার সাথেই দীর্ঘ প্রায় এক ঘন্টার এই বক্তৃতায়
অভিষেক বলেন, খুঁটি পুজা আজ রানীগঞ্জে করে গেলাম, বিসর্জনটা যেন ৪ তারিখে হবে। আর বিজয় মিছিলে আবার আসব। এই বলেই তিনি সকলকে আবার হাত নাড়িয়ে রওনা দিলেন হেলিকপ্টারের উদ্দেশ্যে। এদিনের এই সভায় সরব হয়েছেন তৃণমূলের তারকা প্রার্থী শত্রুঘ্ন সিনহাও।

Leave a Reply