DURGAPUR

দূর্গাপুর আনন্দমেলা চ্যারিটেবল সোসাইটির রবীন্দ্র জয়ন্তী পালন , ” বৈশাখে রবির আলো ” শীর্ষক অনুষ্ঠান

সাংবাদিক জীবনের পঞ্চাশ বছরের জন্য বিশিষ্ট সাংবাদিক, কবি, আবৃত্তিকার ও সমাজকর্মী  বিশ্বদেব ভট্টাচার্যকে  বিশেষভাবে সম্মান

বেঙ্গল মিরর, দূর্গাপুর, রাজা বন্দোপাধ্যায়ঃ দুর্গাপুর আনন্দমেলা চ্যারিটেবল সোসাইটির  পরিচালনায় রবীন্দ্রজয়ন্তী উপলক্ষে গত ১৯ মে দুর্গাপুর  দেশবন্ধু ভবনে ” বৈশাখে রবির আলো ” নামে এক মনোগ্রোহী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।এই আয়োজনে দুর্গাপুরের আনন্দমেলার সদস্যরা ছাড়াও দুর্গাপুর শিল্পাঞ্চলের বিভিন্ন সাংস্কৃতিক  সংগঠনের শিল্পীদের একক ও সমবেত সংগীত মঞ্চস্থ হয়। এছাড়াও বিশেষভাবে আমন্ত্রিত হয়েছিল রূপনারায়নপুর পিস ওয়েলফেয়ার অর্গানাইজেশন । তাদের নৃত্যনাট্য ” বরাকের উপত্যকায় তুমিই রবীন্দ্রনাথ ” পরিবেশন করা হয়।
এই মঞ্চে  সাংবাদিক জীবনের পঞ্চাশ বছরের জন্য বিশিষ্ট সাংবাদিক, কবি, আবৃত্তিকার ও সমাজকর্মী  বিশ্বদেব ভট্টাচার্যকে  বিশেষভাবে সম্মানিত করা হয়। তাকে উত্তরীয় পড়িয়ে ও পুষ্পস্তবক দিয়ে সম্মান জানানো হয়। ৫২ ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে বরাক উপত্যাকার এক শক্তি আন্দোলন থেকে ৮২ ভাষা আন্দোলনের শহীদদের স্মরণ করা। একই সঙ্গে মানভূমকে বাংলা পাশাপাশি স্বার্থে পুরুলিয়ায় যুক্ত করার ইতিহাস তিনি তুলে ধরেন সেইসঙ্গে বলেন রবীন্দ্রনাথ আমাদের জন্ম মৃত্যু সুখে দুঃখে সবচেয়ে বড় সহায়।


সংগঠনের পক্ষ থেকে সভাপতি সুজিত মুখোপাধ্যায় এবং সম্পাদিকা কাকলি মুখোপাধ্যায় সম্মান তুলে দিয়ে বলেন, এমন একজন মানুষকে আমরা দুর্গাপুরে এই সম্মান জানাতে পেরে অত্যন্ত গর্বিত ।বিশ্বদেববাবুর গত ৫০ বছরের জীবনের বিভিন্ন দিকের কথাও তারা তুলে ধরেন।
উদ্যোক্তাদের আমন্ত্রণে এদিন দুর্গাপুরের মাটিতে পিস অবৈতনিক শিক্ষা কেন্দ্রের ছাত্র-ছাত্রীদের পরিবেশনা সকলেরই মন ছুঁয়ে যায়। দুর্গাপুরের পুলিশ আধিকারিক মইনুল হক রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জীবনের প্রাসঙ্গিক ঘটনা প্রবাহ তার বক্তব্যে তুলে ধরেন সকলকেই মুগ্ধ করেন।
দুর্গাপুর আনন্দমেলা চ্যারিটেবল সোসাইটি সারা বছর ধরেই বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে নিজেদেরকে নিযুক্ত রাখেন।

দুর্গাপুরের ঐতিহ্য মন্ডিত এরকম একটি সংগঠনের আমন্ত্রণে পিসের ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে যেতে পেরে ওই সংগঠনের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা শুভদীপ সেন নিজেও আনন্দিত ও আপ্লূত। এই মঞ্চে শুভদীপ সেনকেও সম্মাননা প্রদান করা হয়। এছাড়াও দর্শকাসনেই অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকা সাংবাদিক অভয় মন্ডলকেও একটি স্মারক এবং পুষ্পস্তবক দিয়ে স্বাগত জানানো হয়। সমগ্র অনুষ্ঠানে সঞ্চালনার দায়িত্ব ছিলেন বিশিষ্ট বাচিক শিল্পী কাকলি রায় ও বরুন রায়। আনন্দ মেলা চারিটেবল সোসাইটির সকল সদস্যাদের আতিথেয়তায় উপস্থিত সকলেই মুগ্ধ। অনুষ্ঠানের শুরুতেই স্বাগত বক্তব্য রাখেন সভাপতি সুজিত মুখোপাধ্যায়। সকলকে শুভেচ্ছা জানান সম্পাদিকা কাকলি মুখোপাধ্যায়।

Leave a Reply