পশ্চিম বর্ধমান জেলা / কার্যকর ২০২০ সালের ১ জানুয়ারি থেকে/ আসানসোল পুর এলাকায় বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠান ও দোকানে দোকানে বোর্ডে বাংলা ভাষায় ব্যবহার বাধ্যতামুলক হচ্ছে

বেঙ্গল মিরর, রাজা বন্দোপাধ্যায়, আসানসোল, ১৭ ডিসেম্বরঃ বারবার বিভিন্নভাবে সচেতন করার পাশাপাশি প্রচার চালিয়ে অনুরোধ করা হয়েছিলো। কিন্তু বাস্তবে কাজের কাজ হয়নি। তাই এবার সরকারিভাবে পশ্চিম বর্ধমান জেলার আসানসোল পুর এলাকায় দোকানে দোকানে বোর্ডে বাংলা ভাষার ব্যবহার বাধ্যতামুলক করতে চলেছে আসানসোল পুরনিগম কতৃপক্ষ। একইসঙ্গে এই পুর এলাকায় যেসব রাজ্যসরকার, কেন্দ্র সরকার ও তাদের অনুমোদিত সংস্থা আছে, তাদের বোর্ডে বাংলা ভাষার ব্যবহার করার জন্য পুরনিগমের তরফে অনুরোধ করা হবে। মঙ্গলবার দুপুরে আসানসোল পুরনিগমে এক সাংবাদিক সম্মেলনে এই কথা জানান মেয়র জিতেন্দ্র তেওয়ারি। 

riju advt

তিনি আরো বলেন, ২০২০ সালের ১ জানুয়ারি থেকে বাংলা ভাষার ব্যবহার বাধ্যতামুলক করা হচ্ছে। চলতি মাসের শেষে ডিসেম্বর মাসের পুরনিগমের কাউন্সিলারদের মাসিক বোর্ড বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত পাশ করানো হবে। আমার  আশা, পুরনিগমের এই সিদ্ধান্তের সঙ্গে সহমত হবেন। মেয়র আরো বলেন, আমাদের সবার কাছে বাংলা ভাষা অনেক গর্বের। তাই আমরা চাই এই ভাষার ব্যবহার সব ক্ষেত্রে, যথেষ্ট সম্মানের সঙ্গে করা হোক। সেই কারনেই আমরা চাই পুর এলাকার যত দোকান আছে, তারা অন্য ভাষার সঙ্গে বাংলা ভাষার ব্যবহার করা হোক। অন্যান্য ক্ষেত্রেও এই বাংলা ভাষার ব্যবহার হোক। দোকান মালিকেরা যখন ট্রেড লাইসেন্স নেবেন তাদেরকে পুরনিগমের কাছে লিখিতভাবে জানাতে হবে, যে তারা পুরনিগমের সিদ্ধান্ত মতো বাংলা ভাষার ব্যবহার করবেন। মেয়র আরো বলেন, এই পুর এলাকায় যেসব রাজ্য সরকার ও কেন্দ্র সরকার এবং তাদের অনুমোদিত অফিস আছে তারাও যেন তাদের বোর্ডে বাংলা ভাষার ব্যবহার করে। 
প্রসঙ্গতঃ উল্লেখ্য, এর আগের আসানসোল পুরনিগমের বোর্ড আরো একবার এইভাবে বাংলা ভাষার ব্যবহার করতে উদ্যোগ নিয়েছিলো। কিন্তু, তা বেশীদূর যায়নি। শিল্পাঞ্চলের বেশ কয়েকটি সংগঠনও বাংলা ভাষার ব্যবহার বাড়াতে আসরে নেমেছিলো। কিন্তু, তাও ফলপ্রসূ হয়নি তারমধ্যে অন্যতম ছিলো ভাবনা নামে একটি সংগঠন। প্রতি বছর ২১ ফেব্রুয়ারি ভাষা দিবসের দিন বাংলা ভাষার ব্যবহার করা নিয়ে মাতামাতি হয়। বলা হয়, সচেতনতা বাড়াতে প্রচার চালানো হবে। কিন্তু তাও বেশী দূর যায়না।