সাংবাদিকদের সুরক্ষার কথা ভেবে আসানসোল রেল ডিভিশন এবং আর পি এফ এর পক্ষ থেকে দেওয়া হল সুরক্ষাসামগ্রী মাস্ক, গ্লাভস, স্যানিটাইজার

বেঙ্গল মিরর, আসানসোল, ২২ শে এপ্রিল, ২০২০, সৌরদীপ্ত সেনগুপ্ত: 

riju advt

 পশ্চিম বর্ধমান জেলা কেন্দ্রীয়  স্বাস্থ্য মন্ত্রকের হিসাবে হটস্পটের অরেঞ্জ জোনে আছে । নিরাপত্তার ঘেরাটোপ রয়েছে। করপোরেশনের থেকে স্যানিটাইজ করা হচ্ছে প্রতিটি ওয়ার্ড। রেল প্রশাসন সমানতালে কাজ করে চলছে জরুরী ফ্রেট বহন এবং অন্যান্য ক্ষেত্রে।

এরকমই খবর

প্রতি মুহূর্তের আপডেট মানুষের সামনে তুলে ধরেন সাংবাদিকরা। করোনা ভাইরাসের আতঙ্কের আবহে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সামাজিক দায়বদ্ধতা নিয়ে কাজ করে চলেছেন বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের প্রতিনিধিরা। 
    আর এই ঝুঁকিপূর্ণ কাজের ফাঁকে তাদের মান্যতা দিতে এগিয়ে এলো আসানসোলের পূর্ব রেল কর্তৃপক্ষ এবং  আরপিএফ বা রেলপুলিশ। সহযোগিতায় ছিল বাসুকিনাথ সেবা সমিতি যারা সারা বহর ধরে আসানসোল রেল স্টেশনের চারিপাশের ভবঘুরে এবং দীন দরিদ্রদের মুখে খাবার তুলে দেন।

    আজ পূর্ব নির্ধারিত সময় অনুযায়ী বেলা ১১ টা নাগাদ আসানসোল স্টেশনের সামনেই ১৩ নম্বর মোড়ের কাছে বাসুকিনাথ সেবা সমিতির প্রাঙ্গণে একটি হলে উপস্থিত হন আর পি এফ এর  সিনিওর ডিভিশনাল সুপারিনটেনডেন্ট চন্দ্র মোহন মিশ্র, আই আর পি এস এবং রেলের অন্যান্য আধিকারিকগন্। সঙ্গে ছিলেন  বাসুকিনাথ সেবা সমিতির প্রধান উদ্যোক্তা ও শিল্পপতি পবন গুটগুটিয়া। ছিলেন সজ্জন জলুকা প্রমুখ।
ওই অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের ঝুঁকিপূর্ণ কাজে নিজেদের সুরক্ষিত রাখার জন্যে মাস্ক, গ্লাভস, স্যানিটাইজার,সাবান দেওয়া হয় পূর্বরেল আসানসোল ডিভিশন এবং রেলপুলিশের পক্ষ থেকে।
   আর পি এফ এর সিনিওর ডিভিশনাল সুপারিনটেনডেন্ট বলেন, ” সমাজের সব থেকে সচেতন মানুষ সাংবাদিকেরা এবং তারা ভীষণ ঝুঁকি নিয়ে কাজ করে থাকেন। তাই তাদের কাজ করার জন্যে নিজেদের সুরক্ষা খুব দরকার। তাই রেলের পক্ষ থেকে সাংবাদিকদের কিছু সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান করা হল। এর মাধ্যমে যেমন সমাজে করোনা পরিস্থিতিতে সচেতনতা বাড়বে সেরকম সাংবাদিকদের মাস্ক পড়তে দেখে সাধারণ জনগন আরো সচেতন হবেন।”
এরই সঙ্গে তিনি শিল্পপতি পবন গুটগুটিয়া এবং সজ্জন জালুকার সহায়তার কথা বলে ধন্যবাদ দেন।
   শিল্পপতি পবন গুটগুটিয়া বলেন,” সাংবাদিকরা সারা বছর তো বটেই করোনা পরিস্থিতিতে ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন। তাদের সুরক্ষা ভীষণভাবে দরকার। তাই এ ব্যাপারে তিনি পূর্বরেলের আসানসোল  ডি আর এম এর সঙ্গে কথা বলেন এবং এই সুরক্ষা সামগ্রী দেবার পরিকল্পনা করেন।”