নিজেই সওয়াল করে সিজিএমের কাছে পুলিশ হেফাজত চাইলেন জিতেন্দ্র তেওয়ারি

বেঙ্গল মিরর, আসানসোল, রাজা বন্দোপাধ্যায়, দেব ভট্টাচার্য ও সৌরদীপ্ত সেনগুপ্তঃ আসানসোল কম্বল কান্ডে দিল্লি থেকে গ্রেফতার হওয়া আসানসোল পুরনিগমের প্রাক্তন মেয়র বিজেপি নেতা জিতেন্দ্র তেওয়ারির ৮ দিনের পুলিশ হেফাজত শেষ হয় সোমবার। এদিন আরো একদিনের জন্য জিতেন্দ্র তেওয়ারিকে আসানসোল উত্তর থানার পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন সিজিএম তরুণ কুমার মন্ডল। মঙ্গলবার আবার জিতেন্দ্র তেওয়ারিকে আদালতে পেশ করার নির্দেশ দেন বিচারক। এই প্রসঙ্গে আইনজীবী অভিজিৎ ঘটক বলেন, সিডি কল বা কেস ডায়েরি মঙ্গলবার পুলিশকে জমা দিতে বলা হয়েছে।

এদিন নিরাপত্তার কথা ভেবে ও সকালে বিচারাধীন বন্দীদের মতো না করে, এদিন দুপুর দুটোর পরে জিতেন্দ্র তেওয়ারিকে আসানসোল উত্তর থানা থেকে আনা হয় আসানসোল আদালতে। যদিও এদিন সকাল আদালত চত্বর ঘিরে ফেলা হয়েছিলো পুলিশি নিরাপত্তার ঘেরাটোপে। আগের দিনের মতোই এদিন যখন আসানসোল আদালতে জিতেন্দ্রকে আনা হয় বিজেপি নেতা ও কর্মীরা বিক্ষোভ দেখান। তারা জিতেন্দ্র তেওয়ারির নামে স্লোগান দেন। ছিলেন বিজেপির জেলা সভাপতি দিলীপ দে, রাজ্য কমিটির সদস্য কৃষ্ণেন্দু মুখোপাধ্যায়, বাপ্পা চট্টোপাধ্যায়, আশা শর্মা সহ অন্যান্যরা। আনা হয়েছিলো কমব্যাট ফোর্স। দেওয়া হয় ব্যারিকেডও।

riju advt

এদিন আসানসোল উত্তর থানা থেকে বেরোনোর সময় জিতেন্দ্র তেওয়ারিকে সাংবাদিকদের তরফে প্রশ্ন করা হয়, কয়লা পাচার মামলায় মন্ত্রী মলয় ঘটককে ইডি ডেকেছে কি বলবেন ? এর উত্তরে জিতেন্দ্র বলেন , “আমি আসানসোল বাসী হিসেবে চাইনা যে কোন আসানসোল বাসীর ক্ষতি হয়। বাকি আইনটা উনি বলতে পারবেন। অন্যদিকে, আসানসোল আদালত চত্বরে পুলিশের গাড়ি থেকে নামার সময়, ” আসানসোল কারোর কাছে মাথা নীচু করবে না। কলকাতার কাছে তো নয়ই “। এই বলে পুলিশের পাহারায় আদালতে ঢুকে যা জিতেন্দ্র তিওয়ারি।

 মামলার শুনানি শুরু হওয়ার আগে জানা গেছিলো, আরো তদন্তের জন্য সরকারি আইনজীবীর মাধ্যমে আইও বা তদন্তকারী অফিসার জিতেন্দ্র তেওয়ারিকে আরো ৬ দিনের জন্য পুলিশ হেফাজত বা পিসি আবেদন করেছেন আদালতের কাছে। একইভাবে জানা গেছিলো, আইনজীবীর মাধ্যমে জিতেন্দ্র তেওয়ারির জামিনের আবেদন করা হবে।
কিন্তু পৌনে তিনটে নাগাদ সিজিএম তরুণ কুমার মন্ডলের এজলাসে শুনানি হয় রীতিমতো নাটকীয় পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *