RANIGANJ-JAMURIA

বরযাত্রীর বাস ঢুকে গেল অস্থায়ী ব্রিজের মধ্যে

বেঙ্গল মিরর, চরণ মুখার্জী, রানীগঞ্জ :   বরযাত্রীর বাস ঢুকে গেল অস্থায়ীভাবে নির্মাণ হওয়া ব্রিজের মধ্যে। অল্পের জন্য রক্ষা পেল বরযাত্রীতে আসা মানুষজন। বেহাল ব্রিজ নিয়ে উঠল রাজনৈতিক তরজা। দাবি করা হলো অবিলম্বে একদিনের মধ্যেই গড়ে তুলতে হবে অস্থায়ী ব্রিজ। অভিযোগ উঠল টাকা তছরূপের। শুক্রবার রানীগঞ্জের বল্লভপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের বল্লভপুর থেকে নুপুর যাওয়ার ব্রিজ কয়েক দিনের মধ্যে ভেঙে যাওয়ায়  উঠল এমনই সব অভিযোগ।

প্রায় একমাস আগেই রানীগঞ্জের বল্লভপুরের ওই অংশে নিকাশি নালার ওপর গড়ে ওঠা একটি দীর্ঘ প্রাচীন ব্রিজ অতিরিক্ত পণ্য বোঝায় যান চলাচলের কারণে, ভেঙে যায়। নষ্ট হয় ব্রিজের কাঠামোর বেশ কয়েকটা অংশ। এরপরই ওই ব্রিজের ওপর চাপ কমানোর লক্ষ্যে তার পাশে গড়ে ওঠে এক অস্থায়ী ব্রিজ। শুক্রবার সেই অস্থায়ী ব্রিজের ওপর দিয়ে বরযাত্রীর বাস যাওয়ার সময় গত দুদিনের বৃষ্টির কারণে, ওই ব্রিজের মধ্যে থাকা ভরাট করার সামগ্রী জলের তোড়ে ভেসে চলে যাওয়ায়, ওই ব্রিজটি দুর্বল হয়ে পড়ে, আর তারপরই, তার মধ্যে এবার বরযাত্রীর বাস যাওয়ার সময় সেই বাস ওই ব্রিজের মধ্যে ঢুকে যায়, যদিও তার মধ্যে শুধু চালক ও খালাসী থাকায় বড়সড়ো কোন দুর্ঘটনা না হলেও ওই বাসটিকে ব্রিজের মধ্যে থেকে উঠিয়ে আনতে বড় ক্রেন নিয়ে বাসটিকে তোলা হয়, সেই অস্থায়ী ব্রিজের থেকে।

যদিও এ বিষয়ে ওই এলাকায় বসবাসকারী পঞ্চায়েতের উপপ্রধান স্বীকার করে নিয়েছেন যে ব্রিজটি অস্থায়ীভাবে সেখানে গড়ে উঠেছিল তা মজবুত না হওয়ায় এই বৃষ্টির প্রভাবে সেটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, যার ফলেই এই ভারী বাস সেখানে গিয়ে আটকে গেছে। তার দাবি এটি আসানসোল দুর্গাপুর – উন্নয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে সাময়িকভাবে যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করে পারাপারের জন্য গড়ে তোলা হয়েছিল। সে কারণেই ব্রিজ টি ততটা মজবুত ছিল না।

এবার সে বিষয়ে নজর দিয়ে আগামীতে যাতে এরূপ কোন ঘটনা না ঘটে সে বিষয়ে খেয়াল রেখে উদ্যোগ নেওয়া হবে বলেই জানিয়েছেন তিনি। যদিও এ বিষয়ে স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব দাবি করেছেন এই ব্রিজ তৈরির ক্ষেত্রেও কাট মানি নেওয়া হয়েছে, যার ফলে যে খরচ করে এই ব্রিজ তৈরির কথা, সে খরচ না হওয়ায় অস্থায়ী ব্রিজটির এরূপ বেহাল অবস্থা হল। সেখানেই এদিন স্থানীয় বাম নেতৃত্ব দাবি করেছেন, যে খরচ করে এই ব্রিজ গড়ে তোলার দাবি করা হয়েছে, সেই টাকা খরচ করা হয়নি এই ব্রিজ তৈরির ক্ষেত্রে, যার ফলে ই হঠাৎই একটা বৃষ্টিতেই এরূপ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটল। যা বড়সড় ঘটনাও হতে পারতো বলেই দাবি করেন তারা, আর এর সাথেই তারা দাবি করেন, অবিলম্বে ওই অস্থায়ী ব্রিজ পুনরায় একদিনের মধ্যে করে দিতে হবে পঞ্চায়েত কে, না হলে তারা বৃহত্তর আন্দোলনের পথে যাবেন, বলেই দাবি করেন। যদিও এ বিষয়ে উন্নয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে কোন প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

Leave a Reply