আসানসোল ও দূর্গাপুরে আরো তিনটি এলাকাকে কন্টাইনমেন্ট জোন ঘোষণা জেলাশাসকের / বিডিও অফিসের গাড়ি চালক সহ ২৪ ঘন্টায় করোনা আক্রান্ত আরো ২৫

বেঙ্গল মিরর, রাজা বন্দোপাধ্যায়, আসানসোল, ১৪ জুলাইঃ পশ্চিম বর্ধমান জেলার আসানসোল ও দূর্গাপুরের তিনটি এলাকাকে ” কন্টাইনমেন্ট জোন ” হিসাবে ঘোষণা করা হলো। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পশ্চিম বর্ধমানের জেলাশাসক পূর্ণেন্দু কুমার মাজি এই ব্যাপারে একটি লিখিত নির্দেশিকা জারি করেছেন। এই প্রসঙ্গে জেলাশাসক বলেন, সংক্রমণ আটকাতেই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। তিনটি এলাকার মধ্যে একটি হলো আসানসোল পুরনিগম এলাকার রেলপারের সাউথ ধাদকার রুপকথা সিনেমা হল সংলগ্ন একটি এলাকা। এখানে তিনটি দোকান নিয়ে কন্টাইনমেন্ট জোন করা হয়েছে। এখানে একটি দোকানের পরিবারের দুই সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। আসানসোলের মহিশীলা কলোনির পূর্বপাড়ার সাদাপুকুর এলাকাকে কন্টাইনমেন্ট জোন করা হয়েছে। একইভাবে দূর্গাপুরের সেফকো টাউনশিপের একটি পরিবারের ১১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন৷ ঐ এলাকাকেও কন্টাইনমেন্ট জোন করা হয়েছে। অন্যদিকে , আসানসোলের জামুরিয়া ব্লকের বিডিও অফিসের গাড়ির চালক সহ চারজন গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। যা নিয়ে নতুন করে আতঙ্ক ছড়িয়েছে জামুরিয়ায়। জামুরিয়ার বিডিও কৃষানু রায় বলেন, সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসাবে বেশ কিছু মানুষের লালারসে নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছিল। এদিন সেই পরীক্ষার রিপোর্ট আসার পরে ভুরি , পড়াশিয়া, ইকড়া এলাকার করোনা আক্রান্ত চারজনকে দুর্গাপুরের কোভিড ১৯ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। জেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, ঐসব এলাকায় স্যানিটাইজেশনের কাজ করা হবে।

riju advt

লকডাউন

তাছাড়াও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রচার আরো বাড়ানো হবে। এছাড়াও গত ২৪ ঘন্টায় রানিগঞ্জে আরো তিনজন নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন৷ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ ঘন্টায় পশ্চিম বর্ধমান জেলায় নতুন করে আরো ২৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। জেলার এখন মোট রোগীর সংখ্যা ২৪৩ জন৷ গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১ জন। জেলায় সুস্থতার সংখ্যা ১৫২। জেলায় মঙ্গলবার সন্ধ্যা পর্যন্ত এ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা ৮৫ জন।