আসানসোলে বার অ্যাসোসিয়েশনের সঙ্গে বৈঠকে পুলিশ আধিকারিকরা

আসানসোল, সৌরদীপ্ত সেনগুপ্ত ও রাজা বন্দ্যোপাধ্যায় : আসানসোল আদালতের এক আইনজীবীর সঙ্গে এক পুলিশ অফিসারের সঙ্গে দূর্ব্যবহার করা অভিযোগ উঠেছে।  গত শুক্রবার রাতে আসানসোল জেলা আদালতের আইনজীবী ব্রহ্মদেব দাস ওরফে রমেশের  সঙ্গে আদালতের কাছেই এক পুলিশ অফিসারের দুর্ব্যবহার করেছিলেন বলে অভিযোগ। পরে গত সোমবার আসানসোল জেলা বার অ্যাসোসিয়েশনে সেই পুলিশ অফিসারের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন  আইনজীবী নিজেই।


এরপর বার এ্যাসোসিয়েশনের একজিকিউটিভ কমিটির সদস্যরা সোমবার আসানসোল দূর্গাপুরের পুলিশ কমিশনার এন সুধীর কুমার নীলকান্তমের কার্যালয়ে আসেন
তাদের সঙ্গে ছিলেন  আইনজীবী ব্রহ্মদেব দাস। আইনজীবীদের তরফে পুলিশ কমিশনারকে পুরো বিষয়টি অবহিত করেন। পুলিশ কমিশনার গোটা বিষয়ে তাদের সার্বিক সহযোগিতা করবেন বলে জানান ।
বুধবার বিকেল সাড়ে তিনটে নাগাদ   বার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি রাজেশ তিওয়ারির সঙ্গে   আসানসোলের সার্কেল ইন্সপেক্টর স্নেহময় চক্রবর্তী, আসানসোল উত্তর থানার ট্রাফিক গার্ড ওসি শুভেন্দু চ্যাটার্জি ও আসানসোল উত্তর থানার অফিসার ইনচার্জ বা ওসি তন্ময় রায় আসানসোল বার অ্যাসোসিয়েশনে একটি বৈঠক করেন ।

বৈঠকে গোটা বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয় । এই বৈঠকে অনদের মধ্যে ছিলেন  আসানসোল বার অ্যাসোসিয়েশনের সেক্রেটারি বাণী কুমার মণ্ডল,  আইনজীবী অমিতাভ মুখার্জি,সুপ্রিয় হাজরা, সোমনাথ চট্টরাজ, সুন্ময় সরকার, সনাতন ধারা, অনুপ মুখার্জি, অয়ন মুখার্জি, অয়নজিৎ ব্যানার্জী, শান্তনু ব্যানার্জী, উজ্জ্বল মন্ডল, রীতা কবি, বিনোদ শোলাঙ্কি, দীপক সাহা, বিজয় প্রসাদ, ধীরেন চৌধুরী, শ্যাম আগরওয়াল, মিরাজ আখতার, লালন পাসোয়ান ও অভয় গিরি সহ অন্যান্যরা। উল্লেখ্য  শুক্রবার  রাতে আইনজীবী ব্রহ্মদেব দাস ওরফে তার স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে বাইকে করে  যাচ্ছিলেন।  তখন সঞ্জয় কুমার মন্ডল নামে এক সাব-ইন্সপেক্টর  গাড়ি থামিয়ে তার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেন।

অভিযোগ  আইনজীবী ব্রহ্মদেব দাস নিজের পরিচয় দেন। কিন্তু ওই পুলিশ আধিকারিক তার কথা শোনেননি। এর পাশাপাশি পুলিশ অফিসার  তাদের সঙ্গে  খারাপ ব্যবহারও করেন।  এই ঘটনা নিয়ে আসানসোল জেলা আদালতের আইনজীবীদের মধ্যে ক্ষোভ রয়েছে। তাদের দাবি, মাঝে মধ্যেই পুলিশ রাস্তাঘাটে আইনজীবীদের সঙ্গে দূর্ব্যবহার করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.