আসানসোলে এসে Babul Supriyo উচ্ছ্বসিত, মন দিয়ে গান ও মানুষের জন্য কাজ করবো, একযোগে দিলীপ- শুভেন্দুকে আক্রমন

বেঙ্গল মিরর, রাজা বন্দোপাধ্যায়, আসানসোল, ২৪ নভেম্বরঃ বিজেপি ও সাংসদ পদ ছেড়ে প্রথম বার বুধবার আসানসোলে এসে উচ্ছ্বসিত প্রাক্তন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী তথা আসানসোলের সাংসদ বাবুল সুপ্রিয় ( Babul Supriyo) । এদিন আসানসোলে এসে তৃনমুল কংগ্রেসের কর্মী ও সমর্থকদের উদ্দীপনা ও উন্মাদনা দেখে এবং তাদের কাছ থেকে অভ্যর্থনা পেয়ে এদিন বাবুল নিজের উচ্ছ্বাস চেপে রাখতে পারেননি। পাশাপাশি তার মন্তব্য, মন দিয়ে গান ও প্রাণ দিয়ে বাংলার মানুষের জন্য কাজ করে যাবো। যে সুযোগটা আমাকে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও অভিষেক বন্দোপাধ্যায় আমাকে করে দিয়েছেন। একইসঙ্গে বাবুল এদিন নাম না করে বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি দিলীপ ঘোষের সমালোচনা ও বিজেপি সম্পর্কে তথাগত রায়ের কথাকে সমর্থন করেন।


এদিন সন্ধ্যায় বাবুলকে মোটরবাইক রেলি করে শতাধিক তৃনমুল কংগ্রেসের কর্মীরা আসানসোলের ২ নং জাতীয় সড়কের জুবিলি মোড় বারাবনি বিধান সভার পাঁচগাছিয়ায় তৃণমূল কংগ্রেসের কার্যালয় পর্যন্ত নিয়ে যায়। সেখানে তিনি বারাবনির প্রয়াত বিধায়ক মানিক উপাধ্যায়ের মূর্তিতে মাল্যদান করেন। পরে বাবুল পশ্চিম বর্ধমান জেলা তৃনমুল কংগ্রেসের সভাপতি বিধান উপাধ্যায়, জেলা চেয়ারম্যান উজ্জ্বল চট্টোপাধ্যায়, জেলা আইএনটিটিইউসির সভাপতি অভিজিৎ ঘটক সহ জেলার বিধায়ক ও জেলা নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন।


পরে সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি বলেন, আন্তরিকতা না থাকলে আমি কোন কাজ করিনা। যখন বিজেপিতে ছিলাম তখন তা মন দিয়ে করেছি। এখন তৃনমুল কংগ্রেসে আছি। এখন এই দলটা আরো মন দিয়ে করবো। রাজনীতিটা তো ছেড়ে দিয়েছিলাম। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও অভিষেক বন্দোপাধ্যায়ের জন্য আবার রাজনীতিতে এলাম। দিদি আমাকে বলেন, রাজনীতি ছেড়ো না। ভালো কাজ তো করেছো। বাবুল বলেন, আমি দল বদল করে ও সাংসদ পদ ছেড়ে কোন ইতিহাস সৃষ্টি করিনি। যেদিন দল বদল করেছিলাম, সেদিনই ঠিক করে ছিলাম, সাংসদ পদ ছেড়ে দেবো। তাই করেছি। আমার মতো কজন করতে পারবে জানিনা।

এই প্রসঙ্গে রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী ও তার পরিবারকে আক্রমন করেন বাবুল। তিনি সমালোচনার সুরে বলেন, ঐ পরিবারের বড়কর্তা সহ দুজন তো এখনও তো সাংসদ পদ ছেড়ে দেয়নি। আর শুভেন্দু অধিকারী তো নিজের সম্পর্কে অনেক বড় বড় কথা বলে। কিন্তু তার কিন্তু মন্তব্য আমাকে অবাক করে। আর দিলীপ ঘোষের সম্পর্কে যত কম কথা বলা যায়, তা ভালো। সকালে উঠে ভালো ব্যায়াম ও যোগ করছেন। সেটাই উনি করে যান। তার মতো এতবড় আহাম্মক আমি দেখিনি।


সম্প্রতি বিজেপির প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি তথা রাজ্যপাল তথাগত রায় রাজ্য বিজেপি সম্পর্কে মন্তব্য করেছেন। সেই মন্তব্যকে সমর্থন করে বাবুল এদিন বলেন, তথাগত রায়ের সঙ্গে আমার মতাদর্শগত অমিল থাকতে পারে। তবে তিনি বাংলা বিজেপি সম্পর্কে যা বলেছেন, তা ১২০ শতাংশ ঠিক। কাঁকড়ার মতো এমন একটা দলে আমি থাকতে চাইনি।
আগামী ৬ মাসের মধ্যে নিয়ম মতো আসানসোল লোকসভা কেন্দ্রে উপনির্বাচন হবে। বাবুল আশাবাদী যে, তাতে আসানসোল থেকে তৃনমুল কংগ্রেসের প্রার্থী জিতবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *