Asansol কোটি টাকারও বেশি প্রতারণার অভিযোগ, কলকাতা থেকে গ্রেফতার প্রতারক

রাজা বন্দোপাধ্যায় ও সৌরদীপ্ত সেনগুপ্ত, আসানসোল, ২০ জুলাইঃ কোটি টাকারও বেশি প্রতারণা করে বেপাত্তা হয়ে যাওয়া এক অভিযুক্তকে সোমবার রাতে কলকাতা ধরে নিয়ে এলো আসানসোল দুর্গাপুর আসানসোল দক্ষিণ থানার পুলিশ। আসানসোলের হিরাপুর থানার বার্ণপুরের হামিদনগরের বাসিন্দা ধৃত ব্যক্তির নাম আবিদ মালিক। মঙ্গলবার ধৃতকে আসানসোল আদালতে তোলা হলে বিচারক তার জামিন নাকচ করে ৭ দিনের পুলিশ রিমান্ডের নির্দেশ দেন।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আসানসোল দক্ষিণ থানার জিটি রোডের তালপুকুরিয়ার বাসিন্দা জয়দীপ সিং নামে এক ব্যক্তির একটি ওষুধের দোকান আছে। সেখানে প্রায়ই ওষুধ কিনতে আসতেন আবিদ মালিক নামের ঐ ব্যক্তি। দোকানে যাতায়াতের কারণে জয়দীপ সিংয়ের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে উঠে এই আবিদ মালিকের। অভিযোগ এরপরে ২০১৮ সালের মার্চ মাস থেকে ২০২০ সালের জুলাই মাস পর্যন্ত বিভিন্ন লোকজনকে জয়দীপ সিংয়ের ওষুধের দোকানে আবিদ নিয়ে আসতো। তাদের কাছ থেকে মোটা টাকা সে নিতো। সেই টাকার বিনিময়ে অনেক বেশি পরিমাণ টাকা ফিরিয়ে দেওয়ার আশ্বাস দিতো সে । এর পাশাপাশি আবিদ নিজেকে আসানসোল পুরনিগমের ক্ষমতাশালী ঠিকাদার বলে পরিচয় দিতো। ঐসব ব্যক্তিদের টাকা সেখানে লগ্নি করে তা ফিরিয়ে দেওয়া আশ্বাস দিতো । তার সেই টোপে পড়ে আসানসোল শিল্পাঞ্চলের অনেক ব্যক্তি তাকে টাকা দিয়েছিলো বলে পুলিশের অনুমান।

সেই টাকার পরিমান ১ কোটি টাকারও বেশি বলে অনুমান। নিজের হাবভাবে ও কথাবার্তায় অন্যদের উপর প্রভাব খাটিয়ে সে এই কাজ চালিয়ে যাচ্ছিল। এমনকি ওষুধের দোকানের মালিক জয়দীপ সিংয়ের কাছ থেকেও সে কয়েক লক্ষ টাকা নিয়েছিল। এছড়াও জয়দীপ সিংয়ের সাদা রঙের ইনোভা ক্রিষ্টা গাড়িটি আবিদ প্রায়ই ব্যবহার করত। সেই গাড়ি ২০২০ সালের ৪ আগস্ট আবিদ নিয়ে বেপাত্তা হয়ে যায়। তার কোনো হদিশ না পেয়ে আসানসোল দক্ষিণ থানায় জয়দীপ সিং লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন গত বছরের ২৫ অক্টোবর। সেই অভিযোগ পেয়ে পুলিশ তদন্ত শুরু করে। বেশ কিছুদিন ধরে নজরদারি করার পরে সোমবার আসানসোল দক্ষিণ থানার পুলিশ জানতে পারে অভিযুক্ত আবিদের মোবাইলের টাওয়ার লোকেশন দেখাচ্ছে কলকাতার বউ বাজার থানা এলাকাতে । এরপরেই দ্রুত আসানসোল থেকে পুলিশের তদন্তকারী দল কলকাতা পৌঁছায়। সেখানকার থানার সহযোগিতা নিয়ে অভিযানে নেমে ওয়েলিংটন স্ট্রিট থেকে আবিদ মালিককে গ্রেফতার করে।


অভিযোগকারী জয়দীপ সিং এদিন বলেন, আমার কাছ থেকে আবিদ মালিক কয়েক লক্ষ টাকা নিয়েছে। আমার গাড়ি এক বছর আগে কাজের জন্য নিয়ে যাচ্ছি বলে বেপাত্তা হয়ে যায়। শুনেছি আমার গাড়িতে নীল বাতি লাগিয়ে ঘুরে বেড়াতো। আমি বেশ কয়েকবার ওর সঙ্গে যোগাযোগ করে গাড়ি ও টাকা ফেরত চেয়েছিলাম। কিন্তু সে দেয়নি।
প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আবিদ তার অপরাধের কথা স্বীকার করেছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে । জেরায় আবিদ পুলিশকে জানিয়েছে , সে পুলিশকে সহযোগিতা করবে। পুলিশ ধৃতর বিরুদ্ধে প্রতারণা সহ একাধিক ধারায় মামলা করেছে। আসানসোল দূর্গাপুর পুলিশের ডিসিপি (সেন্ট্রাল) ডাঃ কুলদীপ এস এস এদিন বলেন, নির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে ঐ ব্যক্তিকে কলকাতা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাকে রিমান্ডে নিয়ে আরো জেরা করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *