আদিবাসীরা জমি রক্ষার স্বার্থে দেখা করলেন মেয়রের সঙ্গে

আদিবাসীদের শোষিত হতে দেব না : কাউন্সিলর রীনা মুখার্জি

বেঙ্গল মিরর, আসানসোল, সৌরদীপ্ত সেনগুপ্ত : বুধবার আসানসোল মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের কিছু আদিবাসী মানুষ মেয়র বিধান উপাধ্যায়ের সাথে সাক্ষাৎ করেন। তারা অভিযোগ করেন, কিছু জমি মাফিয়া  তাদের জমি থেকে উচ্ছেদ করতে  চায়। এর বিরুদ্ধে তারা মেয়রের কাছে আবেদন জানান, তাদের জমির অধিকার রক্ষা করতে হবে এবং তাদের নিজের  জমি থেকে উচ্ছেদ হওয়া থেকে রক্ষা করতে হবে। ওই আদিবাসীরা জানান, তারা দীর্ঘদিন ধরে এই জমিতে বসবাস করে আসছেন এবং কৃষিকাজ করে জীবিকা নির্বাহ করছেন। কিন্তু কিছুদিন ধরেই একজন ব্যক্তি তাদের তাদের জমি থেকে উচ্ছেদ করতে চান।

এ বিষয়ে তারা মেয়রের সঙ্গে দেখা করেন। এ প্রসঙ্গে তারা সংশ্লিষ্ট দপ্তরের মন্ত্রীকে চিঠিও দিয়েছেন। এ বিষয়ে স্থানীয় কাউন্সিলরের সঙ্গে কথা বলেও কোনো সমাধান  হয়নি বলে জানান তারা। তবে এ প্রসঙ্গে ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রীনা মুখার্জির সঙ্গে কথা বললে তিনি বলেন, তিনি এ ব্যাপারে পুরোটাই অবগত রয়েছেন। তিনি বলেন, আদিবাসীদের নামে কিছু লোক গণমাধ্যমের সহায়তা নিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করছে এবং মিথ্যা খবর ছড়াচ্ছে। তিনি বলেন যে তিনি তার ওয়ার্ডটিকে তিনি খুব ভালভাবে জানেন এবং তার ওয়ার্ডে কোনওভাবেই তিনি আদিবাসীদের শোষণ হতে দেবেন না।

তিনি বলেন, কিছু আদিবাসীদের গাড়ি আছে, উঁচু বাড়ি আছে, কিন্তু তারাই আদিবাসীদের স্বার্থ রক্ষার কথা বলে। আদিবাসীদের প্রকৃত স্বার্থ নিয়ে তারা চিন্তিত নয়। তারা শুধু আদিবাসীদের নাম নিয়ে নিজেদের স্বার্থ সিদ্ধি করতে চায়। তিনি বলেন, ওই ওয়ার্ডের প্রকৃত আদিবাসী যারা তাদের জমিতে প্রকৃত অধিকার রয়েছে। তাদের বঞ্চিত হতে দেওয়া হবে না। তিনি অভিযোগ করেন, ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের কিছু জমি মাফিয়া কিছু আদিবাসীদের সহায়তায় বড় ধরনের ষড়যন্ত্র করছে যাতে নিরীহ আদিবাসীদের জমি দখল করা যায়। রীনা মুখার্জি সাফ জানিয়ে দেন, যারা এমন অপকর্ম করছেন তিনি এখনও পর্যন্ত তিনি তাদের বিরুদ্ধে কোন কঠোর পদক্ষেপ নেননি কারণ তারাও তার ওয়ার্ডের লোক এবং তিনি চান তারা নিজেদের সংশোধন করে নিক। কিন্তু কেউ যদি নিরপরাধ আদিবাসীদের প্রতারণা করে এবং শোষণ করতে চায়, তাহলে তিনি তা কখনই হতে দেবেন না।

Leave a Reply

Your email address will not be published.