বঙ্গ বিজেপির কার্যকারিণী বৈঠক শেষ, একাধিক বিষয়ে নেওয়া হলো প্রস্তাব

বিচার ব্যবস্থা আক্রান্ত হওয়া থেকে রাজ্যের আইনশৃঙ্খলার অবনতি, শাসক দলকে আক্রমন বিরোধী দলনেতার

বেঙ্গল মিরর, দূর্গাপুর, রাজা বন্দোপাধ্যায়ঃ পশ্চিম বর্ধমান জেলার ইস্পাত নগরী দূর্গাপুরে শনিবার শেষ হলো রাজ্য বিজেপির দুদিনের কার্যকারিণী বৈঠক ( BJP State Executive Meeting ) । দুদিনের এই বৈঠকে দলের রাজ্যের দায়িত্বে থাকা দুই প্রভারী বা পর্যবেক্ষক ও দুই সহ প্রভারী বা সহকারী পর্যবেক্ষক ছাড়াও বাংলার ৫০ জনের মতো নেতা ও নেত্রীরা উপস্থিত ছিলেন। ছিলেন দলের সাংসদ ও বিধায়করাও।

riju advt


জানা গেছে দলের রাজ্য সভাপতি সাংসদ ডঃ সুকান্ত মজুমদার ও বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর উপস্থিতিতে রাজ্য সরকারের বর্তমান কাজের ফাঁকফোকর ও শাসক দলের নেতাদের দূর্নীতি নিয়ে কিভাবে বাংলার মানুষের কাছে যেতে হবে, তা নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে বিস্তারিত ভাবে। এছাড়াও, সামনের পঞ্চায়েত নির্বাচনে কিভাবে দলের সংগঠনকে মজবুত করতে হবে তাও এই বৈঠকে আলোচনা করা হয়েছে। বিধায়ক হিরণ চট্টোপাধ্যায়ের বিষয় নিয়েও আলোচনা করা হয়েছে।বৈঠকে আলোচনার ভিত্তিতে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে প্রস্তাব নেওয়া হয়েছে। তার মধ্যে রয়েছে বাংলার বর্তমান আইনশৃঙ্খলা থেকে আদালতের পর্যবেক্ষকে কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে পঞ্চায়েত নির্বাচন করানোর বিষয়টি।


বৈঠক শেষে শনিবার দুপুরে এক সাংবাদিক সম্মেলনে রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী বলেন, নির্বাচন পরবর্তী হিংসায় শাসক দলের হাতে আক্রান্ত হওয়া দলের নেতা ও কর্মীদের পাশে সবরকম ভাবে থাকবে দল। আদালতের তত্ত্বাবধনে কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে পঞ্চায়েত নির্বাচনের দাবি জানানো হবে।
রাজ্যে শিক্ষা ব্যবস্থায় দুর্নীতিতে এদিন ইডির হাতে তৃনমুল কংগ্রেসের যুব নেতা কুন্তল ঘোষ গ্রেফতার প্রসঙ্গে বলতে দিয়ে তিনি নাম না করে বলেন, এর পেছনেও “ভাইপো” যুক্ত আছে। তাকে কি রক্ষাকবচ বাঁচাতে পারলো? যারা দূর্নীতির সঙ্গে যুক্ত রয়েছে, তাদের কাউকেই রক্ষাকবচ বাঁচাতে পারবে না।
সম্প্রতি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাগরদিঘী ও হাসিমারায় সরকারি প্রকল্পের টাকা খরচ করে সভা করা হয়েছে বলে রাজ্যের বিরোধী দলনেতা কটাক্ষ করেন ।


রাজ্যের আইন শৃঙ্খলার বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে দলের কার্যকারিণী বৈঠকে বলে এদিন শুভেন্দু অধিকারী মন্তব্য করেন। পাশাপাশি, বিচার ব্যবস্থার বিরুদ্ধে আন্দোলন নিয়ে কার্যকারিণী বৈঠকে উদ্বেগ ও নিন্দা প্রস্তাব আনা হয়েছে বলে জানান রাজ্যের বিরোধী দলনেতা।
রাজ্যর বর্তমান রাজ্যপাল প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, আগের রাজ্যপাল যে বিলগুলিতে সই করেননি বর্তমান রাজ্যপালও সেই বেআইনি বিলে সই করেননি। আশা করি তিনি করবেন না।
সাংবাদিক সম্মেলনে দলের মুখপাত্র শমিক ভট্টাচার্য সহ অন্যন্যারা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *